লিভারে চর্বি

লিভারে চর্বি

১৩ জুলাই,২০২০,  ০৮:১৩  ঢাকা  প্রতিনিধি    

লিভারে অতিরিক্ত চর্বি জমে ফ্যাটি লিভার রোগ সৃষ্টি হয়। লিভারের সব কোষের শতকরা ৫ ভাগের বেশি কোষের মধ্যে চর্বি জমা হলে তাকে ফ্যাটি লিভার ডিজিজ বলে। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ফ্যাটি লিভার ডিজিজ ২৭-৩৮% পর্যন্ত হতে পারে।

বিভিন্ন কারণে ফ্যাটি লিভার হতে পারে। তবে আমাদের দেশে নন অ্যালকোহলিক ফ্যাটি লিভার ডিজিজ বেশি হয়।

ফ্যাটি লিভারের কারণ

* ডায়াবেটিস, অত্যধিক স্থূলতা, রক্তে চর্বির মাত্রা বেশি (মেটাবলিক সিনড্রম)

* অ্যালকোহল সেবন

* অতিরিক্ত জাংক ফুড ও কোমল পানীয়

* থাইরয়েড হরমোনের সমস্যা

* দ্রুত ওজন হ্রাস

* পাকস্থলির সার্জারি

* উইলসন ডিজিজ

* ক্ষতিকারক ওষুধ-গ্লুকোকর্টিকয়েড, ইস্ট্রোজেন, টেমোক্সিফেন ইত্যাদি।

ফ্যাটি লিভার হলে কী হয়

* স্বাভাবিক ফ্যাটি লিভার (৮০%)-লিভারে শুধু চর্বি জমে। কোন প্রদাহ বা ফাইব্রোসিস থাকে না। এ সময় যথাযথ চিকিৎসা না করলে লিভারে প্রদাহ হয়ে ফাইব্রোসিস হতে পারে। এমনকি প্রদাহ না হয়েও সরাসরি লিভার ক্যান্সার হতে পারে। এ কারণে স্বাভাবিক ফ্যাটি লিভার হলেও চিকিৎসা না করে বসে থাকার সুযোগ নেই।

* স্টিয়াটো হেপাটাইটিস (২০%) এ পর্যায়ে লিভারে প্রদাহ থাকে। প্রদাহ হতে ফাইব্রোসিস হয়। স্টিয়াটো হেপাটাইটিসে এ আক্রান্ত প্রায় ১১% রোগীর পরবর্তী ১৫ বছরে লিভার সিরোসিস হয়। এদের মধ্যে ৭% রোগী ৬.৫ বছরের মধ্যে লিভার ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়। এ পর্যায়ে চিকিৎসা গ্রহণ করলে ফাইব্রোসিসের গতি কমানো গেলেও পুনরায় স্বাভাবিক অবস্থা ফিরিয়ে আনা সম্ভব না।

উপসর্গ

ফ্যাটি লিভারের সাধারণত কোনো উপসর্গ থাকে না। রুটিন চেকআপ বা অন্য কোনো কারণে পেটের আল্ট্রাসনোগ্রাম করতে গিয়ে ফ্যাটি লিভার ধরা পড়ে। অনেক ক্ষেত্রে তখন রোগটি অনেক অগ্রসর হয়ে যায়। অন্য উপসর্গের মধ্যে পেট ব্যথা, দুর্বল লাগা ইত্যাদি।

আগে ফ্যাটি লিভারকে খুব হালকাভাবে দেখা হতো। বর্তমানে দেখা যাচ্ছে, ফ্যাটি লিভার থেকে লিভার সিরোসিস এমনকি লিভার ক্যান্সারও হতে পারে। ফ্যাটি লিভার রোগীদের হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ার আশংকা বেশি থাকে। তাই যাদের ফ্যাটি লিভার আছে তাদের উচিত রোগটি সম্পর্কে জানা এবং চিকিৎসা গ্রহণ করা।

চিকিৎসা

ফ্যাটি লিভারের চিকিৎসার দুটি অংশ

মেটাবলিক সিনড্রমের চিকিৎসা

* শরীরের অতিরিক্ত মেদের চিকিৎসা

* ইনসুলিন রেজিসটেন্সের চিকিৎসা

* উচ্চ রক্তচাপের চিকিৎসা

* রক্তের অধিক চর্বির চিকিৎসা

ফ্যাটি লিভারের চিকিৎসা

* জীবনাচার পরিবর্তন

* খাদ্যাভ্যাস পরিবর্তন

* নিয়মিত ব্যায়াম করা

* ফার্মাকোলজিক্যআল চিকিৎসা-পাইওগ্লিটাজন, মেটফরমিন, এন্টি অক্সিডেন্ট, আরসোডিঅক্সিকলিক এসিড, ফাইব্রেট

* সার্জারি-বারিয়াট্রিক সার্জারি

অধিকাংশ ক্ষেত্রে ফ্যাটি লিভার সাধারণ ফ্যাটি হলেও, এ ফ্যাটি লিভারই আমাদের দেশের লিভার সিরোসিসের অন্যতম কারণ। শুরুতেই চিকিৎসকের পরামর্শ নিন এবং অন্যদেরও এ ব্যাপারে উৎসাহিত করুন।

লেখক : পরিপাকতন্ত্র, লিভার ও মেডিসিন বিশেষজ্ঞ

মুক্তিরআলোটুয়েন্টফোর.কম  / রেজা             

Please Share This Post in Your Social Media

Comments are closed.

© All rights reserved © 2015-2020 Muktiralo24.Com
Design & Developed BY SD REPON KHAN